Thokbirim | logo

১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আদিবাসীদের ফসলী জমিতে লেক খনন পরিকল্পনার প্রতিবাদে সংবাদ সন্মেলন

প্রকাশিত : নভেম্বর ১১, ২০২১, ১৫:৫৬

আদিবাসীদের ফসলী জমিতে লেক খনন পরিকল্পনার প্রতিবাদে সংবাদ সন্মেলন

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদ কার্যালয়ে জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি ইউজিন নকরেকের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাগাছাস কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি জন যেত্রা এবং মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন গারো স্টুডেন্ট ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক লিয়াং রিছিল। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে জিএমএডিসির সভাপতি অজয় এ মৃ, মিসেস মেবুল দারু, গৌরাঙ্গ বর্মন, হেরিদ সিমসাং, প্রবিণ চিসিম, নেরে নবাট দালবৎ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, আমরা মধুপুরে বসবাসকারী আদিবাসী জনগণ ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে জানতে পারলাম যে, টাঙ্গাইলের মধুপুরের আদিবাসী অধ্যুষিত চুনিয়া, পেগামারী, পীরগাছা, সাইনামারী, ভূটিয়া ও থানারবাইদ গ্রামের পার্শ্বেই ১১ নং শোলাকুড়ী ইউনিয়নের পীরগাছা মৌজার আমতলী নামক বাইদে দেশী-বিদেশী পর্যটকদের চিত্ত বিনোদনের উদ্দ্যেশ্যে আদিবাসীদের তিন ফসলী আবাদী জমিতে বন বিভাগ কর্তৃক কৃত্রিম লেইক খনন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে, যা আমাদের নিরীহ আদিবাসীদের জীবন-জীবিকা ও সংস্কৃতির ওপর মারাত্নক হুমকিস্বরূপ। এছাড়াও লেকের পাশে বসবাসকারী আদিবাসীদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক পরিবেশের উপর ক্ষতিকর প্রভাবসহ মধুপুর বনের অবশিষ্ট প্রাকৃতিক বন ও পরিবেশের উপর স্থায়ীভাবে প্রভাব পড়বে।

তারা আরও বলেন, বন বিভাগের এমন আত্নঘাতি পরিকল্পনার সাথে আমরা সম্পূর্ণরূপে দ্বিমত পোষণ করছি এবং উল্লিখিত স্থানে আমাদের স্বত্ব দখলীয় এবং আরওআর রেকর্ডভুক্ত জমিতে লেক খনন করা হলে আমাদের সর্বশক্তি দিয়ে এলাকার সকল আদিবাসীদের সহযোগিতায় তা প্রতিহত করার অঙ্গীকার করছি।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে অনুরোধ করা হয়েছে যে, প্রস্তাবিত এ লেক খননের জন্যে বরাদ্দকৃত বাজেট অন্যত্র বাস্তবায়িত করা হোক। যেমন- রসুলপুর এলাকায় বা অন্য এলাকায় যেখানে বন বিভাগের দখলিকৃত জমি আছে, যা আদিবাসীদের জীবন-জীবিকাকে প্রভাবিত করবে না।

উল্লেখ্য যে, আদিবাসীদের আপত্তি থাকা সত্ত্বেও বন বিভাগ যদি লেক খনন প্রকল্প থেকে সরে না যায়, তাহলে সেটি শুধু মানবাধিকার লঙ্ঘন নয়, দেশের সংবিধান, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের অনেক ইতিবাচক পদক্ষেপ ও অঙ্গীকারের বরখেলাপ হবে। এমনকি জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার মানদন্ডেরও লঙ্ঘন হবে বলে তারা মতবাদ ব্যক্ত করেছেন।



 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x