Thokbirim | logo

২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পালিত হলো গারো নেতা পরেশ চন্দ্র মৃ’র ২৩তম মৃত্যু বার্ষিকী

প্রকাশিত : মার্চ ০৭, ২০২১, ১৭:১০

পালিত হলো গারো নেতা পরেশ চন্দ্র মৃ’র ২৩তম মৃত্যু বার্ষিকী

স্মরণসভা,প্রার্থনা ও আলোচনার মাধ্যমে পালিত হলো আ.বিমানি গারো রাজা ও জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা অবিসংবাদিত নেতা স্বর্গীয় পরেশ চন্দ্র মৃ এর ২৩তম মৃত্যু বার্ষিকী। মৃত্যু বার্ষিকীতে বিভিন্ন সংগঠনের  ব্যানারে তার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ও স্মরণ  করেন।তিনি ১৯৯৮ খ্রিষ্টাব্দের ৭ মার্চ হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

ফা রাজা পরেশ চন্দ্র মৃ জম্মগ্রহণ করেন টাংগাইল জেলা মধুপুর উপজেলা ৯নং অরণখোলা ইউনিয়ন  চুনিয়া  গ্রামে ১৯২৯ সালে।তার  মার নাম ছিল দেওয়া মৃ এবং বাবার নাম রায়চান নকরেক।উনারা দুই ভাই ছিলেন বড় ভাই গজেন্দ্র মৃ এবং( তিনি) পরেশ চন্দ্র মৃ।তিনি শিশিলিয়া দারুর সাথে বিবাহে আবদ্ধে হন ১৯৫৬ সালে। তিনি তিন মেয়ে এবং দুই পুত্রের জনক।

তখকার সময়ে ১৯৬১ সালে আদিবাসী অঞ্চলের ১২-১৫টি গ্রাম নিয়ে প্রায় ৪০ বর্গমাইল এলাকা যোগ করে ইকোপার্ক গড়ে তোলা জন্য সরকারি  ঘোষণা দেওয়া হয়, মৌখিক ভাবে।তখন আদিবাসী নেতারা তীব্র প্রতিবাদ জানায়।সবার আগে যিনি সব সময় অন্যায়ের প্রতিবাদ করতেন তিনি ফা রাজা পরেশ চন্দ্র মৃ।

তার উদ্যোগে ১৯৬২ সালে আদিবাসীদের অধিকার আদায়ের জন্য এবং সংগ্রাম আন্দোলন জোরদার করার জন্য একটি সংগঠন গড়ে তুলেন।তখন সেটির নাম ছিল “জলছত্র জয়েনশাহী  আদিবাসী ঋণদান সমবায় সমিতি”যা বর্তমানে নাম পরিবর্তন হয়ে এখন”জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদ”।

ফা রাজা পরেশ চন্দ্র মৃ আজীবন মানুষের কল্যাণে ও মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করেছিলেন। অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেন জয়নেশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি ও প্রয়াত নেতার পরিবারবর্গ।

।। থকবিরিম প্রতিনিধি, মধুপুর



 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost