Thokbirim | logo

৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গারো বইমেলা ২০২১ ।। কেমন হচ্ছে বইপ্রেমীদের আড্ডা কিংবা বেচাবিক্রি

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০২১, ০১:৫৭

গারো বইমেলা ২০২১ ।। কেমন হচ্ছে বইপ্রেমীদের আড্ডা কিংবা বেচাবিক্রি

একজন ফরাসি সাহিত্যিক, রাজনীতিবিদ এবং মানবাধিকারকর্মী ভিক্টর হুগো বলেছিলেন- বই বিশ্বাসের অঙ্গ, বই মানব সমাজকে টিকাইয়া রাখিবার জন্য জ্ঞান দান করে। অতএব, বই হইতেছে সভ্যতার রক্ষাকবচ। তাই আমিও বলি বই হলো আমাদের পরম বন্ধু ।একটা জাতিকে নতুন দিগন্তে নিয়ে যেতে পারে সেটি হচ্ছে বই। একটা জাতির অস্তিত্ব, ইতিহাস, সমাজ, সংস্কৃতি, আইন, ভালোবাসার-আবেগের প্রতীক হলো  বই। একটি বই একটি জাতির বিশাল স্বপ্নের সমাহার। তাই প্রত্যেকটা  মানুষ নূন্যতম হলেও নিজের স্বকীয়তা জানার জন্য হলেও বই পড়া উচিৎ। বই আমরা কেনো পড়বো? এমন প্রশ্নের জবাবে বলতেই হয়… আমার জাতির কবি, লেখকদের বই আমাদেরই পড়তে হবে। এর কোনো দ্বিতীয় মতামত নেই।

প্রতিবছরের মত ন্যায় এবারেও অমর একুশে বই মেলা অনুষ্ঠিত হলেও এবারে মার্চ মাসে বই মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এতে কিছু সংখ্যক বইপ্রেমী, বইপিপাসু আদিবাসী ও বাঙালি ভাই বোনদের একটু হতাশ করলেও থকবিরিম প্রকাশনী হতাশ করেনি বরং যুগোপোযোগী চমৎকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে । ঢাকা, গুলশান, কালাচাঁদপুর ,বারিধারা শিশু মালঞ্চ স্কুল প্রাঙ্গণে থকবিরিম প্রকাশনী কর্তৃক “গারো বইমেলা ২০২১” আয়োজন করেছে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি কথা সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন ও লেখক ও কবি থিওফিল নকরেক উদ্বোধন করেন গারো বইমেলার। যা ফেব্রুয়ারি মাস জুড়ে চলমান থাকবে। ঢাকায় গারোদের অলিখিত খ্যাত রাজধানী কালাচাঁদপুর এলাকায় এমন সুন্দর উদ্যোগ নেওয়ার জন্য থকবিরিমের সম্পাদক মি. মিঠুন রাকসাম প্রশংসার দাবিদার। গুরুত্বপূ্র্ণ্য বিষয় হচ্ছে  এই ঢাকায় এই প্রধম থকবিরিম প্রকাশনীর হাত ধরে গারো বই মেলার যাত্রা শুরু হয়েছে। যা চলমান থাকবে বলে আশাবাদী থকবিরিম প্রকাশনী। তাছাড়া রাজধানী কালাচাঁদপুর এলাকায়  ”গারো বইমেলা” আয়োজন করা একটা উপযুক্ত জায়গা। এই এলাকায় গারোদের সকল শ্রেণি পেশার মানুষ বসবাস করেন। যারা কাজের ব্যস্ততার কারণে সময় সুযোগের অভাবে প্রিয় কবি লেখকদের বই কিনতে পারছেন না। তাদের জন্য একটা অন্যতম সুযোগ হয়ে উঠলো। এছাড়া “গারো বইমেলা” যেহেতু বিকাল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত অবস্থান করছে। সেই সুবাদে বইপ্রেমীরা পেশাগত কাজকর্ম সেড়ে সন্ধ্যায় মেলাই আসছেন। মেলাতে ছাত্র/ছাত্রী, যুবক/যুবতীদের অংশগ্রহণ চলমান।

প্রতিদিনই নিত্য নিত্য মানুষ বইপ্রেমীরা আসছে। তাদের পছন্দের বই কেনার জন্য ভিড় জমাচ্ছে। তাছাড়া এই স্কুল প্রাঙ্গনে একদিকে নয়ানগর ক্রেডিট নির্বাচনী অফিস অন্যদিকে “নিকিস’স মাশরুম” মেলা চলছে। এখানে ঘন্টার পর ঘন্টা আড্ডা দিয়ে গল্প-গুজব করে চায়ের চুমুকে বই পড়তে পড়তে পছন্দের বই কেনা যায়। যা অন্যান্য বই মেলার চাইতে একটু ভিন্ন মাত্রায় বই মেলা হওয়ার মতোই। পরিস্থিতিতে বলা যায় জমজমাট একটা পরিবেশ।

থকবিরিম প্রকাশনীর প্রধান সম্পাদক মিঠুক রাকসাম’এর কাছে জানা যায় ক্রেতাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে  গারো বইমেলায় ক্রেতাদের জন্য বিশেষ মুল্য ছাড় ৩০% থেকে ৭০% পর্যন্ত রয়েছে। যার ফলে ক্রেতারা চাহিদার অধিক বই সুলভ মুল্যে কিনতে পারবে। গারো বইমেলাতে গারো কবি, লেখকদের লেখা – সমাজ, সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য, ধর্মীয়, আইন, লোককাহিনি, ভ্রমণ সম্পর্কীয় সকল ধরনের বই পাওয়া যায়।

গারো কবি, লেখকদের প্রত্যেকটা লেখা বই গারো জাতির জন্য খুবই অপরিসীম গুরুত্বপূর্ণ।

।।তেনজিং ডিব্রা, তরুণ লেখক ও চিন্তক



 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost