Thokbirim | logo

২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চেয়ার নিয়ে চালাচালি না করে বাগাছাস-এর উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যে পৌছার শপথ নিন-মি. বিপুল সাংমা

প্রকাশিত : নভেম্বর ২৪, ২০২০, ২০:৩৪

চেয়ার নিয়ে চালাচালি না করে বাগাছাস-এর উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যে পৌছার শপথ নিন-মি. বিপুল সাংমা

বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠনের(বাগাছাস) প্রতিষ্ঠাকালীন কনভেনর মি. বিপুল সাংমা। বর্তমানে তিনি বিরিশিরির ঘোরাইট গ্রামে নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। থকবিরিমের বিশেষ প্রতিনিধি লেখক দিশন অন্তু রিছিলের সাথে বাগাছাসের প্রতিষ্ঠাকালীন সময়, পরবর্তীকাল ও বর্তমান বাগাছাসের হালচাল নিয়ে নানা কথা বলেছেন। লেখক এবং মি. বিপুল সাংমার আলোচনার চুম্বক অংশ থকবিরিম পাঠকদের জন্য প্রকাশ করা হলো।

থকবিরিম : কেমন আছেন আপনি?

মি. বিপুল সাংমা : ঈশ্বরের দয়ায় এবং আশির্বাদে ভালোই আছি।

থকবিরিম : শুনেছি বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠনের প্রতিষ্ঠাকালীন কনভেনর ছিলেন আপনি। প্রতিষ্ঠাকালীন সেই সময়কার প্রেক্ষাপট থকবিরিম পাঠকদের জন্যে বলবেন কি?

মি. বিপুল সাংমা : প্রতিষ্ঠাকালীন প্রেক্ষাপট এবং বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপট বলতে, সময়টা ছিলো ১৯৭৯ নভেম্বর এখন ২০২০, আপনারা এখন বুঝে নিন সময়ের ব্যবধানে এবং কালের পরিবর্তনে যেমনি আমি, আপনি আমাদের সমাজ ব্যবস্থা, দেশের রাজনৈতিক অবস্থার ও বিশ্ব রাজনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে, ঠিক আমরাও এই নেটওয়ার্কের যুগে পিছিয়ে নেই যদিও আদিবাসী সম্প্রদায় হিসেবে আমাদের গণ্য করা হয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় বা.গা.ছা.স সংগঠনের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য এই যুগেও যুগের সাথে তাল মিলিয়ে  সম্মুখপানে এগিয়ে নিতে পারছি না। অবশ্য এর পেছনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ কারণ থাকতে পারে যা আমি জানি না। বর্তমানে(কোভিড-১৯) এর জন্য যেমনি বিশ্ব অচল ঠিক তেমনি আমরাও বর্তমানে সময়ের সাথে সাথে পাল্লা দিতে পারছি না বলে আমার মনে হয়।

থকবিরিম : বাগাছাস প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে কী কী ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল? সেই সমস্যাগুলো কীভাবে উত্তরণ করেছিলেন?

মি. বিপুল সাংমা : বাগাছাস সংগঠন করতে গিয়ে তেমন কোনো সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়নি বটে, তবে  ধর্মীয় কতিপয় নেতৃবৃন্দের গোড়ামীর কারণে কিছুটা বেগ পেতে হলেও আমাদের শক্ত ও নীতিগত অবস্থানের জন্য পেরে উঠতে পারেনি, সামাজিকভাবে তেমন কোনো সমস্যা হয়নি।

থকবিরিম : প্রতিষ্ঠার পর সামাজিক, রাজনৈতিক কিংবা ধর্মীয় কোন চাপ এসেছিল কি?

মি. বিপুল সাংমা : যেহেতু জাতি ও সমাজের মঙ্গলের জন্যই প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো এবং আমরা সমাজের সবার কাছে আমাদের উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য যথার্থভাবে তুলে ধরতে পেরেছিলাম সেহেতু তেমন কোনো চাপের সম্মুখীন হইনি।

থকবিরিম : বাংলাদেশে রাজনৈতিক ও সামাজিক (নেতৃত্ব তৈরির পেছনে বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠনের ভূমিকা অপরিসীম। রাজনৈতিক ও সামাজিক সেক্টরে ভালো ভালো নেতা পরবর্তিতে উঠে এসেছে। কিন্তু বর্তমানে বাগাছাসের নেতৃত্ব নিয়ে নেতৃত্বের সংকট তৈরি হয়েছে বলে মনে হচ্ছে, এই নিয়ে কিছু বলবেন কি?

মি. বিপুল সাংমা : এটা আমাকে খুব আনন্দ দেয় যে, বাগাছাস থেকে বর্তমানে বেশ কয়েকজন নেতা জন্ম দিতে পেরেছি। আমি নাম উল্লেখ করবো না তবে এদের উঠে আসার পেছনে বাগাছাসের অবদান নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। আমি বলতে চাই, ভাই চেয়ার নিয়ে চালাচালি না করে জাতি ও সমাজের বৃহত্তর স্বার্থে সবাই মিলে একত্রিত হয়ে বাগাছাস এর উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যে পৌছার শপথ নিন।

থকবিরিম : বর্তমানে বাগাছাস দুই ভাগে বিভক্ত। বাগাছাসের প্রতিষ্ঠাতা কনভেনর হিসেবে বিভক্ত দুই দলের জন্য আপনার বলার আছে কি?

মি. বিপুল সাংমা : আগেই বলেছি ব্যক্তি স্বার্থকে পরিহার করে এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের কথা মাথায় রেখে এক ব্যানারে মিলিত হোন এবং সুখি সমৃদ্ধ জাতি হিসেবে সম্মুখপানে এগিয়ে যাওয়ার শপথ নিন। ঈশ্বর আপনাদের সবার মঙ্গল করুন এবং সবাইকে আমার শুভেচ্ছা।



 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost