Thokbirim | logo

২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

টেক্সাসের ডাইরি ।। Halloween উৎসব (Trick and treat)  ।। সুমনা চিসিম

প্রকাশিত : নভেম্বর ১৯, ২০২০, ২১:৫৪

টেক্সাসের ডাইরি ।। Halloween উৎসব (Trick and treat)   ।। সুমনা চিসিম

Halloween উৎসব (Trick and treat)

Halloween  উৎসবটি এই অক্টোবর মাসের একত্রিশ তারিখ হয়ে গেল। যুক্তরাষ্ট্রে এ ধরনের উৎসব দেখে কিছুটা অবাকই হয়েছিলাম। তাঁরাও ভূত শয়তান বিশ্বাস করে তা জানা ছিল না।  সে যাই হোক মৃত ব্যক্তির আত্মাকে বা ভূতকে নিয়ে মানুষের নানা  কল্পনারই বর্হিপ্রকাশ Halloween উৎসবের মধ্য দিয়ে।  কল্পনায় মানুষের কংকাল অথবা কালো বা সাদা কাপড়ে জড়ানো লম্বা লম্বা নখযুক্ত কংকাল, আবার ভূতের প্রতীকি রূপ মাকড়সা ও মাকড়সার জাল। এদেশের প্রায় সব স্টোরগুলিতে উৎসবের এক কি দেড় মাস থেকেই ভূতের নানান ধরনের আদলে তৈরি পুতুল, মুখোশ, মিষ্টি কুমড়া, পোশাক পরিচ্ছদ, শয়তানের টুপিসহ নানান সাজগোছের জিনিসপত্রে ভরে যায়।  মানুষজন এসব কিনে আর নিজ নিজ বাড়ির সামনে ভূত বা শয়তানের প্রতিকৃতি সাজিয়ে রাখে আর ৩১শে অক্টোবেরর জন্য অপেক্ষায় থাকে।

Halloween উৎসব প্রধানত প্যাগানদের  Celtic festival Samhain উৎসব থেকে এসেছে। বৃটেন ও আয়ারল্যান্ড এই উৎসব করতো। পহেলা নভেম্বর ছিল আইরিশদের নতুন বছর । গ্রীষ্মকাল ও নতুন বছর চিহ্নিত করার জন্যও এই উৎসব করতো বলে উল্লেখ আছে। তাঁদের বিশ্বাস ছিল এই উৎসবের সময় যারা মারা যায় তাঁদের আত্মা সারা পৃথিবীতে ভ্রমণ করে এবং ভ্রমণ শেষে পুনরায় নিজ নিজ ঘরে ফিরে আসে। ঐতিহ্যবাহী এই উৎসবটি আইরিশ মিথ থেকে প্রচলিত।  Halloween  সর্ম্পকে এক মজাদার গল্প হলো  Stringy Jack নামক এক ব্যক্তি, সে শয়তান বা ভূতকে মদ পানের জন্য আমন্ত্রণ করতো। তবে মদের বিল নিজে পরিশোধ না করে চালাকি বা প্রতারণা করে শয়তান বা ভূতদেরকে টাকা দেওয়ার জন্য বাধ্য করতো। শয়তান বা ভূত মদের টাকা দিলে Jack নিজের পকেটে ভরতো আর শোধ করার পর বাকি টাকা যেন ফেরত নিতে না পারে সে ব্যবস্থাও নিয়ে রাখতো। শয়তান বা ভূতেরা ক্রশকে ভয় করতো বলে সাথে রূপালী ক্রশ রাখতো। ভূত বা শয়তানের ভয়ের সুযোগ নিয়ে Jack শর্ত জুড়ে দিতো যেন মৃত্যুর পর তাঁর আত্মার প্রতি কোন দাবি বা বিরক্ত না করে। এভাবে সে দিন পার করতো। আরেকদিন সে ভূতদের গাছে চড়ে ফল পেড়ে দিতে আবদার করলো। ভূত গাছে চড়ামাত্র গাছের গায়ে ক্রশ চিহ্ন এঁকে দিল যেন শয়তান বা ভূতেরা ক্রশের ভয়ে নামতে না পারে। Jack আবারও এই সুযোগে শর্ত দিয়ে বললো মৃত্যুর পর দশ বছরে তাঁর আত্মার প্রতি কোন দাবি বা বিরক্ত যেন না করে। এভাবে সে চালাকি বা প্রতারণা করে শর্ত আরোপ করতো।

দিন যায় মাস যায় বছর যায়। একদিন Jack মারা গেল। আর ঈশ্বর তাঁর অপ্রীতিকর ও খারাপ কাজের জন্য স্বর্গে স্থান দিলেন না। এদিকে শয়তানরাও তাঁর চালাকি বা প্রতারণার জন্য মানসিকভাবে অশান্তিতে ছিল। প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য নরকেও তাঁকে স্থান  দিল না।  Jack এর শাস্তি হিসাবে রাতের অন্ধকারে শয়তানেরা এক জলন্ত কয়লা দিয়ে (যা তাঁকে পথ চিনিয়ে নিবে) আজীবন পৃথিবীতে ঘুরে থাকার জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হলো। Jack জলন্ত কয়লা হাতে নিতে পাচ্ছিল না। কষ্ট হচ্ছিল। তাই সে মিষ্টি কুমড়ার ভিতরের অংশ খালি করে সেখানে জলন্ত কয়লা রেখে পৃথিবীতে উদ্দেশ্যহীন ও এলোমেলোভাবে ঘুরে বেড়াতে লাগলো। গল্পের বিশ্বাস থেকে Halloween উৎসবের সময় ভূত শয়তানের ছদ্মবেশ নিয়ে মৃত ব্যক্তির আত্মা থেকে নিজেকে লুকানোর চেষ্টা করে। এইসব ছদ্মবেশ অর্থাৎ কংকাল, মুখোশ, মাকড়শা, মাকড়শার জাল দিয়ে তৈরি পোশাকসহ মিষ্টি কুমড়া ঘরের সামনে সাজিয়ে রেখে মৃত ঔধপশ ও অন্যান্য মৃত ব্যক্তির মন্দ আত্মা থেকে লুকিয়ে থাকা ও ফিরে যাওয়ার জন্য ভয় দেখানো যাকে বলা হয় Trick and treat ।

ক্যাথলিক খৃষ্টান সম্প্রদায় পরবর্তীতে ‘All Souls’ day’নামে নভেম্বরের ২ তারিখ পালন করে থাকে। মৃত ব্যক্তিদের স্মরণ করা ও তাঁদের আত্মার শান্তি লাভের জন্য প্রার্থনা করাই মূল উদ্দেশ্য।  আবার মেক্সিকানরা  ÔDay of the Dead’ অর্থাৎ মেক্সিকান ভাষায় ÔDia De los MuertosÕ  নভেম্বরের এক থেকে দুই তারিখ পর্যন্ত পালন করে থাকে। তবে এই উৎসব Halloween এর মত নয়। ‘ÔDay of the Dead’ পালনের অর্থ অন্য হলেও মৃত ব্যক্তির স্মরণে ও আত্মাকে নিয়েই উৎসব বা আয়োজন তা বলা যায়। আরেকদিন এ বিষয় নিয়ে লেখার ইচ্ছা থাকলো।

পরিশেষে  উৎসব পালনকারী ও মৃত ব্যক্তিদের আত্মার জন্য শুভকামনাসহ শুভেচ্ছা ‘Happy Halloween’!!



ডলুবাড়ি ত্রিপুরা কামির শংকা ।। পাভেল পার্থ

সীমিত পরিসরে বর্ণিল আয়োজনে উদযাপিত হলো গুলশান-বনানী ওয়ানগালা

গারো ভাষায় প্রতিবন্ধীদের নিয়ে নির্মিত হলো নতুন গান

সহকর্মীদের কর্মজীবনে ঘটে যাওয়া ব্রাদারের কিছু স্মৃতি ।। মানুয়েল চাম্বুগং

মুখ ও দাঁতের যত্নে প্রথম যে ৩টি কাজ আপনাকে করতেই হবে ।। মার্ক প্রত্যয় রেমা

মুখ ও দাঁত নিয়ে প্রচলিত কিছু ভুল ধারণা ।। ডা. মার্ক প্রত্যয় রেমা

ব্যথাকে নয় রোগকে ভালো করুন ।।  ডেন্টাল সার্জন মার্ক প্রত্যয় রেমা

বাবা’রা কেমন হয়? ভাবি… ।। পরাগ রিছিল

ওয়ানগালার তাৎপর্য ও গুরুত্ব || রেভা. মণীন্দ্রনাথ মারাক

ওয়ানগালার ইতিহাস ।। রেভা. মণীন্দ্রনাথ মারাক

দওক্রো সুআ রওয়া বা ঘুঘু পাখির নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

বাসন্তী রেমার নতুন জীবনের সূচনা, তৈরি হচ্ছে দোকান ও পাঠাগার




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost