Thokbirim | logo

৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

পাহাড় – সমতলে অব্যাহত ধর্ষণ ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে সমাবেশ

প্রকাশিত : নভেম্বর ১৫, ২০২০, ১৮:০০

পাহাড় – সমতলে অব্যাহত ধর্ষণ ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে সমাবেশ

রবিবার ( ১৫ নভেম্বর,২০২০) ইং তারিখে পাহাড় – সমতলে অব্যাহত নারী ধর্ষণ ও বিচাহীনতার ও ব্যর্থ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে পদত্যাগসহ ৯ দাবিতে খাগড়াছড়িতে সমাবেশ করেছে ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ।

আজ আনুমানিক সকাল ১০ ঘটিকায় সময় পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অংশ হিসেবে পাহাড় থেকে সেনা শাসন তুলে নাও, পর্যটন নামে ভূমি বেদখল বন্ধ কর, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে নারী নির্যাতন বন্ধ কর, পাহাড় কি সমতলে – লড়াই হবে সমানতালে এসব বিভিন্ন সম্বলীত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে খাগড়াছড়ি জেলা সদরে শাপলা চত্বরে সমাবেশ করতে চাইলে পুলিশ বাঁধা দেন। এক পর্যায়ে সমাবেশে পুলিশের  বাধা অতিক্রম করে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সমাবেশে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাসুদ রানার সঞ্চালনায়  বাংলাদেশ নারীমুক্তির কেন্দ্রের কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক নাঈমা খালেদ মনিকা সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ফরাদ জামান জনি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স ,  হিল উইমেন্স ফেডারেশন এর সাধারণ  দপ্তর সম্পাদক নীতি চাকমা, বিএমএসসি’র কেন্দ্রীয় সভাপতি  নিয়ংগ মারমা,  ডাব্লিউআরএননএর সংগঠক নমিতা চাকমা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের খাগড়াছড়ি জেলার আহ্বায়ক কবির হোসেন ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশে নারী ধর্ষণ দিন দিন বেড়েই চলেছে। কর্মস্থল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাস্তা- ঘাটসহ নিজ বাড়িতেও নারীরা ধর্ষণ, নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। এছাড়া দেশব্যাপী ধর্ষণবিরোধী আন্দোলনের পরও ধর্ষণ থামছে না। বিচারহীনতা সংস্কৃতি ও সরকারের ক্ষমতাশালী লোকজনের অপরাধীদের আশ্রয়-প্রশ্রয়দানের কারণে এমন ঘটনা বারবার ঘটে চলেছে বলে বক্তারা অভিযোগ করেন। এছাড়া ধর্ষণ বিরোধী প্রতিবাদকারীদের উপর সরকার দলীয় কর্মীরা হামলা চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন।

এছাড়া বক্তারা আরো বলেন, সরকার পাহাড়ে উন্নয়নের নামে পাহাড়ি উচ্ছেদের পাঁয়াতার করছে। পাহাড়ি আদিবাসী গ্রামে যেখানে পর্যাপ্ত প্রাইমারি স্কুল নেই, চিকিৎসা সেবা হাসপাতাল নেই সেখানে আদিবাসীদের উচ্ছেদ করার জন্য পরিকল্পিতভাবে পর্যটন, হোটেল- মোটেল নির্মাণ করা করা হচ্ছে যা সেখানকার আদিবাসীদের অস্তিত্বের প্রশ্ন থেকে গেছে। সরকার আর কত পাহাড়ি মানুষের চিৎকার শুনলে এসব দখলবাজ থামবে, আর কত আর্তনাদ, কান্না শুনলে সরকারের কানে পৌঁছাবে বলে বক্তার বলেন।

এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে পর্যটনের নামে ভূমি বেদখল বন্ধ করে পাহাড়িদের ভূমি অধিকার নিশ্চিত করে পর্যাপ্ত শিক্ষা, চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য দাবি জানান। এছাড়া সকল ধর্ষকদের দ্রুত বিচার আইনের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

অন্যদিকে,  ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ এর সমাবেশে পুলিশের বাঁধা দেওয়ার প্রতিবাদে খাগড়াছড়ি স্বনির্ভর বাজারে বিক্ষোভ করেছে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দরা।

 

তারা অভিযোগ করেন,  ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ এর সমাবেশে বিভিন্ন এলাকার থেকে আসা লোকজনকে পথে পথে গাড়ি থামি আটকিয়ে রেখেছে সেনাবাহিনী ও পুলিশ প্রশাসন। একটি গণতান্ত্রিক দেশে প্রশাসনের অগণতান্ত্রিক আচরণ কোনভাবে আশা করা যায় না বলে প্রতিবাদ জানান।

।। আদিত্য ত্রিপুরা




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost