Thokbirim | logo

২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ১০ই ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

দও মারিয়া বা পাখি শিকার নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

প্রকাশিত : নভেম্বর ০৯, ২০২০, ০৬:৫২

দও মারিয়া বা পাখি শিকার নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

এই পাখি শিকার নাচে শুধু নাচই হয় না নাচের সাথে গানও আছে। ছেলেদের সংখ্যা নয় থেকে এগারো জন থাকবে, সমসংখ্যক মেয়েরাও থাকবে। নাচের জন্যে যেভাবে সাজানো হয় ঠিক সেভাবেই সাজবে সবাই। ছেলেদের পিঠে তীর রাখার তূণ থাকবে, আর বাম হাতে ধনুক থাকবে। মেয়েদের কিছুই থাকবে না, তবে বাম হাতের ছোট আঙুলে মোটামুটি বড় আকারের রুমালের এক কোন বাঁধবে। রুমালটি ছোট আঙুলে শক্ত করে বাঁধতে হবে, হাতের কব্জি ঘুরালে রুমাল বাতাসে উড়বে, যেন কোনোমতেই খুলে না যায়, সেই মত রুমাল বাঁধতে হবে। যারা বাদকরা তাঁরা একসাথে হবে না আলাদা আড়ালে থাকবে। ছেলেদের বাম পাশে প্রায় কাছাকাছি মেয়েরা দাঁড়াবে, দামার বাজা শুরু হলে তার তালে তালে মেয়ে-ছেলে কিছু সময় নাচবে। মেয়েরা রুমাল ঘুরাতে কোন সময়ও ভুলবে না, নাচতে নাচতে এক সময় ছেলেরা গান গাইবে সমসুরে এক সাথে। গানের কথা গুলো এরকম বাংলায় দিলাম-
ছেলের দল: তীরের মাথায় বিষ লাগিয়ে, পাখি শিকার করব আমি।
গারো ভাষায়: চ্রিনি খুসিকো বিজি আননে, দও দাওনা রেগেন আংআ।

এই গান ছেলেরা সবাই নেচে নেচে একসাথে কয়েকবার গাইবে। এ সময় মেয়েরাও দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখবে না, তারাও হাতের রুমাল বাতাসে উড়িয়ে নাচতে থাকবে। ছেলেদের গান শেষ হওয়ার সাথে সাথে প্রত্যেক মেয়ে নেচে নেচে ডান হাত দিয়ে ছেলেদের বাম কাঁধ ধরবে, আর নাচতে নাচতে বাম হাতের রুমাল ঘুরিয়ে উড়িয়ে সবাই এক সাথে গান গাইবে-

মেয়ের দল: শিকারেতে যাব আমি, পাখি গুলো তুলে আনবো, ও নাথ শুন হে প্রাণ নাথ।
গারো ভাষায়: দও দাওয়াচি রেগেন আংআ, দওকো কললে রাকগেন, ওয়ে চামে কিননাজকমা?

গান ধাপে ধাপে অনেক লম্বা আমারো সব গুলো স্মরণ নেই, হয়তো কারো জানা থাককতে পারে, তারপর গান বন্ধ, ছেলেরা দামার তালে তালে নেচে ঘুরে তুন থেকে তীর নিবে। তীর ধনুকে লাগিয়ে টেনে ভাব দেখিয়ে তীর ছুড়বে আর মেয়েরাও পিছনে পিছনে নেচে নেচে শিকার করা পাখি তুলবে জমা করে রাখবে, সবকিছু নেচে তাল মিলিয়ে তুলে। অঞ্চল ভেদে গানের কথা গুলো কিছু পরিবর্তন দেখা যায়। যেমন:

ছেলে: তীরের মাথায় বিষ লাগিয়ে, শিকারেতে যাব আমি।
মেয়ে: শিকারেতে যাব আমিই- ই-ই-ই-ই, ও নাথ শুন হে প্রাণ নাথ।

এই শিকারের গানকে অনেকে লেওয়া-টানা গান বলে, এই গান ও নাচকে শুধু গারোদেরকে করতে দেখেছি, মাঝে মাঝে দেখতাম, এই গান গ্রামে গ্রামে ঘুরে পরিবারে দেখিয়ে কিছু টাকা পয়সা তুলে নিতো। আবার কোন ধনী গারো পরিবার তাদেরকে ডেকে টাকা দিয়ে গান নাচ করাতো, আর গ্রামের লোকেরা সবাই নকমার বাড়িতে গিয়ে নাচ গান দেখতো।



সীমিত পরিসরে বর্ণিল আয়োজনে উদযাপিত হলো গুলশান-বনানী ওয়ানগালা

গারো ভাষায় প্রতিবন্ধীদের নিয়ে নির্মিত হলো নতুন গান

সহকর্মীদের কর্মজীবনে ঘটে যাওয়া ব্রাদারের কিছু স্মৃতি ।। মানুয়েল চাম্বুগং

মুখ ও দাঁতের যত্নে প্রথম যে ৩টি কাজ আপনাকে করতেই হবে ।। মার্ক প্রত্যয় রেমা

মুখ ও দাঁত নিয়ে প্রচলিত কিছু ভুল ধারণা ।। ডা. মার্ক প্রত্যয় রেমা

ব্যথাকে নয় রোগকে ভালো করুন ।।  ডেন্টাল সার্জন মার্ক প্রত্যয় রেমা

বাবা’রা কেমন হয়? ভাবি… ।। পরাগ রিছিল

ওয়ানগালার তাৎপর্য ও গুরুত্ব || রেভা. মণীন্দ্রনাথ মারাক

ওয়ানগালার ইতিহাস ।। রেভা. মণীন্দ্রনাথ মারাক

দওক্রো সুআ রওয়া বা ঘুঘু পাখির নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

বাসন্তী রেমার নতুন জীবনের সূচনা, তৈরি হচ্ছে দোকান ও পাঠাগার

শুভ বিজয়া দশমী ।। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল দুর্গাপূজা




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost