Thokbirim | logo

১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কোভিড-১৯ ।। নিজে সচেতন হই, অন্যকেও সচেতন করি।। মানুয়েল চাম্বুগং

প্রকাশিত : অক্টোবর ২৩, ২০২০, ২০:২২

কোভিড-১৯ ।। নিজে সচেতন হই, অন্যকেও সচেতন করি।। মানুয়েল চাম্বুগং

২০২০ সাল। মানুষের জীবনে নিয়ে এসেছে বিষ। বছরের শুরু থেকে আজবধি করোনা নামক মহামারি ভাইরাসটি জনজীবনকে তছনছ করে দিয়েছে। তবে অংকের হিসাব করলে দেখা যাবে লাভলোকসান দুটোই হয় এদেশে। লাভবান হলো এই করোনাই সুযোগ করে দিয়েছে দেশের অমঙ্গলের জন্য যারা এতদিন কুকর্ম, দুষ্কর্ম করে বেড়াচ্ছিল তাদের আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে এবং নরপশু সেই ধর্ষকদের শাস্তি যাবৎজীবন কারাদণ্ড থেকে মৃত্যুদণ্ড আইনে পাশ করতে। অন্যদিকে মরণ ঘাতক এই করোনা মানুষের জীবনকে আজ নিস্ব করে দিয়েছে; অনেকেই কোটি কোটি টাকার ঋণগ্রস্ত করেছে। কেড়ে নিয়েছে লাখো মানুষের মূল্যবান জীবন।

বলা হয়ে থাকে, পৃথিবীর ইতিহাসে অতীতে করোনা ভাইরাসের মতো ১৮টি ভয়ংকর-মহামারি ভাইরাস এসেছিল। আবার একসময় শেষও হয়ে গিয়েছে। করোনা ভাইরাসও একদিন থাকবে না। শেষ হয়ে যাবে। সেই মহতী দিনের প্রতীক্ষায় আজ সারা পৃথিবীর মানুষ। তবে সেদিনের আশায় বসে থাকলে আমাদের চলবে না। ইউরোপ, আমেরিকা ও আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে ইদানিং যেভাবে আক্রান্তের হার ও মৃত্যের সংখ্যা বাড়ছে। যা আমাদের দেশের জন্য একটি অসনি সংকেত। শীতকাল আসলে আমাদের দেশে কী-যে পরিবেশ পরিস্থিতি হবে বুঝা যাচ্ছে না। তবে অনেক বিশেষজ্ঞই মনে করছেন শীতের সময় আমাদের দেশেও করোনার প্রভাব মারাত্মক আকার ধারণ করবে।

তাই আমি মনে করি করোনা প্রতিরোধের জন্য এখন থেকেই আমাদের পদক্ষেপ নেয়া উচিত। করোনা প্রতিরোধের জন্য আমরা কিছু পদক্ষেপ নিতে পারি। ১. আইনের কঠোর ব্যবস্থা করা। কারণ আমাদের দেশের মানুষ দাণ্ডা না দিলে ঠান্ডা বোঝে না; বিশেষ করে মাস্ক পরাটি আইনগতভাবেই ব্যবস্থা করা। ২. যারা মাস্ক, স্যানিটাইজার, স্যাভলন তৈরি ও বিক্রি করে তাদের দিকে নজর দেয়া। তারা গুণগত মানসম্পন্ন বজায় রেখে তৈরি করে কিনা। ৩. দরকার পড়লে আবারও লকডাউন দেয়া। লকডাউনে নিন্মবিত্ত ও মধবিত্ত পরিবারগুলো চাকরি হারালে সমস্যায় পড়বে। তাদের এই দুরুহ অবস্থার সময় আগের মতো সরকারি-বেসরকারি যৌথউদ্যোগে তাদের খাদ্য, সাবান ও স্যানিটাইজার ও মাস্ক সরবরাহ করা। ৪. কোনো দেশে ভ্যাক্সিন আবিষ্কার করলে সেই ভ্যাক্সিন দেশে নিয়ে আসা। ৫. পরিবারের প্রত্যেক সদস্য-সদস্যাদের সচেতন হওয়া।

করোনা প্রতিরোধের জন্য পরিবারই একটি উত্তম স্থান বলে আমি মনে করি। কারণ জীবনের বেশিরভাগ সময়ই আমরা পরিবার পরিজনদের সাথেই সুখে-দুঃখে, হাসি-আনন্দে থাকি। আমরা কেউ চাই না পরিবারের কেউ করোনা রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাক। আমরা চাই সবাই যেন সুস্থ থাকে। তাই পরিবারের সকল সদস্য-সদস্যাদের ভালো রাখা বা করোনা মুক্ত রাখা আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব। এই দায়িত্ববোধ নিয়ে আমাদের বাইরে বের হওয়া উচিত। অর্থাৎ পরিবার থেকে আমরা যখন বাইরে কোথাও যাই বা অফিসে যাই সেই সময় আমাদের উচিত স্বাস্থ্যবিধি মনে চলে মাস্ক পরে ঘর থেকে বের হওয়া, যাতে পরিবারের সকলেই সুস্থ থাকতে পারে এবং রাস্তাঘাটে যাদের সাথে দেখা হবে তারাও যাতে নিরাপদে থাকতে পারে।

পরিশেষে বলতে চাই আসুন আমরা করোনা প্রতিরোধে নিজেরা সচেতন হই এবং অন্যদেরকেও সচেতন করে তুলি।



সামনে আরো ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় গান নিয়ে আসতে পারবো আশা করছি ।। পিংকি চিরান (এফ মাইনর)

গানের শিক্ষক পল্লব স্নাল স্মরণে ।। মতেন্দ্র মানখিন

রাঙামাটিতে চলন্ত সিনজিতে আদিবাসী কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, আটক ২

জংজংআ রওয়া  কিংবা জা-চকগা রওয়া  নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

বহেরাতুলি গ্রামকেও গ্রাস করছে সোমেশ্বরী ।। জর্জ রুরাম

ইতিহাস থেকে হারিয়ে যাচ্ছে দিঘলবাগ গ্রামের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ।। অরন্য ই. চিরান

মেথ্রা জাজং নিয়া বা যুবতীদের চাঁদ দেখা নাচ: জিংজিংগ্রিকগা রওয়া বা প্রিয়জনকে ধরে নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

ব্রাদার গিউম পেলেন নেদারল্যান্ড রাজার বিশেষ সম্মাননা ‘অ্যাওয়ার্ড অব দ্যা কিং

ইউটিউবটাই আমার ভালোবাসা ।। নীল নন্দিতা রিছিল

গারো ভাষা ও সাহিত্যের স্বরোপ-৪ ।। বর্ণমালা সংক্রান্ত কিছু তথ্য ।। বাঁধন আরেং




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x