Thokbirim | logo

৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাংলাদেশ আচিক সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংসদ কর্তৃক ব্রাদার গিয়োমকে সংবর্ধনা প্রদান

প্রকাশিত : অক্টোবর ২০, ২০২০, ০০:১৬

বাংলাদেশ আচিক সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংসদ কর্তৃক ব্রাদার গিয়োমকে সংবর্ধনা প্রদান

বাংলাদেশে সমাজ সেবায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য ব্রাদার গিয়োম তেইজেকে নেদারল্যান্ডের রাজা কর্তৃক অ্যাওয়ার্ড অব দ্যা কিং পুরস্কারে ভুষিত করায় এক অনারম্বর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ আচিক সাহিত্য-সাংস্কৃতি সংসদ। সোমবার (১৯ অক্টোবর ২০২০) বিকাল ৪:০০ সময় ভাটিকাশরের সিমবায়োসিস-এর অডিটোরিয়ামে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি কবি অরন্য ই. চিরান।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ আন্ত:ধর্মীয় সংলাপ কমিশনের সাধারণ সম্পাদক রেভা. ফাদার শিমন হাচ্ছা, কারিতাস ময়মনসিংহ অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক মি. অপূর্ব আর. ¤্রং, সালেসিয়ান সিস্টার্স নার্সিং ইনস্টিটিউট ময়মনসিংহের অধ্যক্ষ সিস্টার লিয়া দ্রং, এসডিএ চার্চ ময়মনসিংহের প্রেসিডেন্ট পাস্টার দিলীপ হাগিদক, কালব জামালপুর জেলা ব্যবস্থাপক মি. কার্তিরোজ চিরান, সিমবায়োসিস ময়মনসিংহ সংস্থার বিজনেস ম্যানেজার জনাব জুল জালালে ওয়ালেউর রহমান সুইট, বাগাছাস ময়মনসিংহ মহানগরী শাখার সভাপতি বিপু বর্ষ রেমা, গাসু ময়মনসিংহ মহানগরী শাখার সভাপতি পিকলু রুগা এবং ব্রাদার গিয়োমের শুভার্থীবৃন্দ। এছাড়াও দূরদূরান্ত থেকে শুভেচ্ছা বাণী পাঠান ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশ কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ভদ্র ¤্রং এবং কক্সবাজার থেকে গবেষক গ্রেনার মারাক।
বর্ণাঢ্য এ আয়োজনে ব্রাদার গিয়োমের সংক্ষিপ্ত লিখিত জীবনী পাঠ করে শোনান লেখক সুমা রোজারিও এবং সঞ্চালনায় ছিলেন সংগঠনের সহ-সাধারণ সম্পাদক কবি সুবর্ণা পলি দ্রং। বক্তারা সবাই ব্রাদার গিয়োমের সহজ-সরল জীবন-যাপন, বাংলাদেশে ব্রাদারের কর্মপরিধির কথা উল্লেখ করেন। অনুষ্ঠান শেষে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষে উপহার সামগ্রী ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।
ব্রাদার গিয়োম ১৯৭৬ সালের ২৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশে আসেন। প্রথমে তিনি চট্টগ্রামে একজন মিশনারি হিসেবে কাজ করেন। পরবর্তীতে পাঁচ বছর কাজ করার পর তিনি ঢাকায় চলে আসেন। ঢাকায় ৬ বছর কাজ করে ১৯৮৭ সালে ময়মনসিংহে চলে আসেন। তখন থেকেই তিনি ময়মনসিংহে কাজ করে চলেছেন অবিরত। বাংলাদেশে তাঁর বিশেষ অবদানগুলোর মধ্যে ঢাকায় গারোদের জন্য নকমান্দি (গারোদের ঘর) স্থাপন, বিভিন্ন জায়গায় স্কুল স্থাপন, পথ শিশুদের পড়াশুনায় সাহায্য করা, কমিউনিটি প্রতিবন্ধী সেন্টার স্থাপন, ছাত্রাবাস স্থাপন, শিক্ষার্থীদের স্টাইপেন্ড প্রদান, আন্ত:ধর্মীয় সংলাপ কমিশন গঠন ইত্যাদি। এছাড়াও তিনি আদিবাসীদের ভাষা গবেষণা নিয়ে অনেক ধরণের কাজ করেছেন। প্রায় ৪৪ বছর ধরে বাংলাদেশে সেবা করে যাচ্ছেন অবিরত। এ অনুষ্ঠানে ব্রাদার তাঁর বক্তব্যে আয়োজক কমিটি ও সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞা জানান। তাঁর অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত হওয়ায় ময়মনসিংহবাসী খুবই খুশি।

।। অরন্য ই. চিরান



জংজংআ রওয়া  কিংবা জা-চকগা রওয়া  নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

বহেরাতুলি গ্রামকেও গ্রাস করছে সোমেশ্বরী ।। জর্জ রুরাম

ইতিহাস থেকে হারিয়ে যাচ্ছে দিঘলবাগ গ্রামের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ।। অরন্য ই. চিরান

মেথ্রা জাজং নিয়া বা যুবতীদের চাঁদ দেখা নাচ: জিংজিংগ্রিকগা রওয়া বা প্রিয়জনকে ধরে নাচ ।। তর্পণ ঘাগ্রা

ব্রাদার গিউম পেলেন নেদারল্যান্ড রাজার বিশেষ সম্মাননা ‘অ্যাওয়ার্ড অব দ্যা কিং

ইউটিউবটাই আমার ভালোবাসা ।। নীল নন্দিতা রিছিল

গারো ভাষা ও সাহিত্যের স্বরোপ-৪ ।। বর্ণমালা সংক্রান্ত কিছু তথ্য ।। বাঁধন আরেং

https://www.facebook.com/100025593635943/videos/729684511227997/

ব্রাদার গিয়োমকে সংবর্ধনা ময়মনসিংহ আচিক সাহিত্য সংসদ

Gepostet von Thokbirim Prokashoni am Montag, 19. Oktober 2020




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost