Thokbirim | logo

২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

১৯৬৪ সালের রায়ত ।। গুলিতে মা-মেয়ের পিঠ ঝাঁজরা হয়ে যায় ।।  সরোজ ম্রং

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০, ১৭:০৩

১৯৬৪ সালের রায়ত ।। গুলিতে মা-মেয়ের পিঠ ঝাঁজরা হয়ে যায় ।।  সরোজ ম্রং

পূর্ব প্রকাশের পর…

পরদিন দুপুর ১২টায় মেজান নকরেকের বাড়ি থেকে ভারতের উদ্দেশ্যে দেশত্যাগের মিছিল শুরু হয়। মিছিলের অগ্রভাগে ডানে বায়ে ও পেছনে পাহারায় ছিল সাহসী সশস্ত্র  যুবকদের  দল। দেশত্যাগী এই মিছিলে আনসার বাহিনীর সহায়তায় দাঙ্গাবাজরা কয়েকবার আক্রমনের ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালায়। এসব আক্রমন প্রতিহত করে  সামনে এগিয়ে চলে দেশত্যাগীরা। এভাবে বেশিরভাগ লোক যখন বর্তমান বাংলাদেশের বর্ডার বোর্ড অতিক্রম করছে ঠিক সেসময় গাড়ি ভর্তি সশস্ত্র সীমান্ত রক্ষীরা বর্ডার রোড  হয়ে পূর্বদিক থেকে এগিয়ে আসতে থাকে। বর্তমান রংমান পাড়ার ফরেস্ট অফিসের সামনে গাড়ি রেখে ঘাতক বাহিনীরা জংগলের ভেতর দিয়ে দ্রুত দৌড়ে গিয়ে সুবিধাজনক স্থানে এ্যাম্বুস গ্রহণ করেন।

মিছিলটি যখন দু পাহাড়ারের মাঝদিয়ে সেই সংকীর্ণ পথ দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক সেই মুহূর্তে খুব কাছ থেকে ঘাতক বাহিনী একের পর এক গ্রেনেড ছুড়তে থাকে নিরীহ দেশত্যাগীদের  লক্ষ্য করে  সেই সাথে চলে অবিরাম গুলি বর্ষণ। মুহুর্মুহু গুলি আর গ্রেনেডের বিকট শব্দে প্রকম্পিত হয়ে উঠে নির্জন পাহাড়, অবিশ্বস্য ঘটনার আকস্মিকতায় ভয়ে আতঙ্কে আদিবাসীরা জংগলের ভেতর এদিক ওদিক দৌড়ে পালাতে থাকে। হৃদয় বিদায়ক এই হত্যাকাণ্ডের তীব্রতা এতই ভয়াবহ ও বেদনাময় যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলারের ইহুদি নিধনকে স্মরণ করিয়ে দেয়। সদ্য বিবাহিত থসান তার প্রিয়তমা স্ত্রীর হাত ধরে  প্রাণ বাঁচাতে পালাচ্ছিলেন, এমন সময় ঘাতকদের  তাড়া করা গুলিতে তার প্রিয়তমার মাথার খুলি উড়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে থসানের স্ত্রী। প্রিয়তমা স্ত্রী নববধু রমনী । থসানের বা হাতের কব্জিতে গুলি লেগেছে কিন্তু সেদিকে তার কোন খেয়াল নেই। সে তার স্ত্রীর লাশ তুলে পালানোর চেষ্টা করছে কিন্তু পেছনে চলে আসা লোকগুলো লাশ রেখে থসানকে পালাতে বাধ্য করে।

থসান পিছু ফিরে তাকাচ্ছে আবার পালাচ্ছে। অনুপমা দিও তার দুবছরের প্রথম কন্যা সন্তান দিপ্তীকে পিঠে বেঁধে স্বামীর হাত ধরে পালানোর সময় হোঁচট  খেয়ে মাটিতে পড়ে যায়্ । তার স্বামী তাকে দ্রুত টেনে তুলে দৌড়াতে শুরু করলে পেছন থেকে ছুটে আসা গুলিতে মা ও মেয়ের পিঠ ঝাঁজরা হয়ে যায়। শিশু পলার মা পলাকে পিঠে বেঁধে পালাচ্ছে পালানোর সময় পলার মায়ের গ্রীবায় গুলি লাগলে সঙ্গে সঙ্গে উবুর হয়ে মাটিতে পড়েন। পলা কাঁদতে থাকে চিৎকার করে। রক্তে ভেসে যায় পলার সারা শরীর। এই অবস্থায় শিশু পলার মামা পিঠে বাঁধা শিশু পলাকে মায়ের কাছ থেকে ছাড়িয়ে পলাকে নিয়ে পালায়।

চলবে…

১৯৬৪ সালের রায়ত ।। আদিবাসী হত্যার জীবন্ত সাক্ষী হয়ে বেঁচে আছেন এখনও ।। সরোজ ম্রং

একান্ত আলাপে বাসন্তী রেমা- ‘আমি জীবনেও এই জমিতে গাছ লাগাতে দিবো না’

https://www.facebook.com/thokbirim/videos/1163701897348748

সামাজিক বনায়নের নামে আদিবাসীদের নিজ বাসভূমি থেকে উচ্ছেদ ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ।

Gepostet von Thokbirimnews.com am Mittwoch, 16. September 2020

https://www.facebook.com/IndependentTVNews/videos/1211504035676807

আদিবাসী সাহিত্য নিয়ে বইমেলায় 'থকবিরিম'

একুশে বইমেলায় আদিবাসীদের সাহিত্য চর্চা নিয়ে হাজির হয়েছে #থকবিরিম প্রকাশনী। দেশসেরা প্রকাশনীগুলোর পাশাপাশি সমানতালে এগিয়ে এটি। এক নজরে দেখে নিন……….

Gepostet von independent24.tv am Freitag, 22. Februar 2019

 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost