Thokbirim | logo

২৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দুর্গাপুরে প্রাথমিক পর্যায়ে হাজং ভাষায় শিক্ষা কার্যক্রম চালুকরণ শীর্ষক সেমিনার মঙ্গলবার

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ০৭, ২০২০, ২৩:১২

দুর্গাপুরে প্রাথমিক পর্যায়ে হাজং ভাষায় শিক্ষা কার্যক্রম চালুকরণ শীর্ষক সেমিনার মঙ্গলবার

নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমিতে সরকারি প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক পর্যায়ে হাজং ভাষায় শিক্ষা কার্যক্রম চালুকরণ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মঙ্গলবার ( ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০) বেলা ১১ টায়।

বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠনের উদ্যোগে এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফারজানা খানম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিরিশিরি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালাচারাল একাডেমির পরিচালক শরদিন্দু সরকার (স্বপন হাজং), দুর্গাপুর উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবু তাহের ভূঁঞা, কাপেং ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি উজ্জ্বল আজিম।

বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠনের সভাপতি আশীষ কুমার হাজংয়ের সভাপতিত্বে এ সেমিনারে উক্ত বিষয়ে প্রবন্ধ পাঠ করবেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পল্টন হাজং। বিষয়টির ওপরে গঠনমূলক আলোচনা করবেন সম্মানিত আলোচক- মতিলাল হাজং, সভাপতি, হাজংমাতা রাশিমণি কল্যাণ পরিষদ, হরিদাস হাজং, সহ সভাপতি, বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠন,  সন্ধ্যা রানী হাজং, সভাপতি, হাজং তিমাদ (নারী) সংগঠন ও স্বপ্না দেবী হাজং, প্রধান শিক্ষক, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠন।

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশে প্রায় ২০ হাজারের মতো হাজং জনসংখ্যা রয়েছে। তারা স্মরণাতীত কাল থেকেই বাংলাদেশের বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের দুর্গাপুর, কলমাকান্দা, ধোবাউড়া, নালিতাবাড়ি, ঝিনাইগাতী উপজেলা এবং সুনামগঞ্জ জেলার তাহেরপুর, বিশ্বম্ভরপুর ও দোয়ারা বাজার উপজেলায় বসবাস করে আসছে। তাদের নিজস্ব  ভাষা, সংস্কৃতি ও কৃষ্টি কালচার এখনো বিদ্যমান। ‘বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠন’ হাজং ভাষা-সংস্কৃতি রক্ষা ও বিকাশে অত্যন্ত দায়িত্বের সাথে কাজ করার চেষ্টা করছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে এবং কাপেং ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায়  ‘বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠন’ আদিবাসী নেভিগেটর প্রকল্পের আওতায় হাজং ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষায় একটি পাইলট প্রকল্প নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুরের ৫টি হাজং গ্রামে বাস্তবায়িত করছে। এ প্রকল্পের আওতায় দুর্গাপুর উপজেলার গোপালপুর, ভবানীপুর, লক্ষীপুর, মেনকী, ডাহাপাড়া এ ৫টি হাজং গ্রামে হাজং ভাষা শিক্ষাকেন্দ্র চালু এবং নিজস্ব ভাষায় পাঠ্যপুস্তক তৈরি ও শিক্ষাদানের ফলে ঐ গ্রামের প্রায় ৫০ জন হাজং শিশুরা মাতৃভাষায় প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষালাভের সুযোগ পায় এবং তারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও ভালভাবে অংশ নিতে সক্ষম হয়। যার ফলে, এই কোমলমতি হাজং শিশুরা এখন নিজের ভাষায় গান, কবিতা, ছড়া ও গল্প বলতে পারে এবং তাদের পরিবার ও সমাজে এসব নিয়মিত চর্চা করে। এছাড়াও ২০১৫-২০১৬ সালে বেসরকারি সংস্থা, ‘পপি’ এবং তারও আগে ‘অক্সফাম’ ও হাজংমাতা রাশিমণি কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুর ও কলমাকান্দা উপজেলায় ১০টির বেশি হাজং ভাষার শিক্ষা স্কুল চালু করা হয়েছিল। যেখানে শতাধিক হাজং ছেলেমেয়ে নিজেদের মাতৃভাষায় পড়া লেখার সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু এই সংস্থাগুলোর প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার ফলে এখন এই মহৎ কার্যক্রমের ধারাবাহিকতা রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। যার ফলে, অনেক হাজং শিশু নিজের মাতৃভাষায় শিক্ষালাভ হতে বঞ্চিত হচ্ছে এবং নিজের সংস্কৃতিকে ভুলে যেতে বসেছে। প্রাথমিক পর্যায়ে হাজং ভাষায় শিক্ষা ব্যবস্থা না থাকার ফলে সহজে পাঠদান বুঝতে না পারা এবং হাজং ছেলেমেয়েদের মাঝে শিক্ষা থেকে ঝরে পড়ার হারও লক্ষ্য করা যায়।

২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে ৫টি আদিবাসী জাতিগোষ্ঠীর শিশুদের প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে মাতৃভাষায় শিক্ষা কার্যক্রম চালু করার সরকারিভাবে ঘোষণা আসে। সরকার প্রথম ধাপে পাঁচটি আদিবাসীদের মাতৃভাষায় প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক শিক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সে পাঁচটি ভাষা হলো- (১) চাকমা, (২) মারমা, (৩) ককবরক (ত্রিপুরা), (৪) সাদরি (ওঁরাও) ও (৫) গারো। কিন্তু  ধাপে ধাপে আদিবাসীদের অন্যান্য ভাষায় প্রাথমিক শিক্ষা চালু করণে সরকারের প্রতিশ্রুতি থাকলেও এ ব্যাপারে আর তেমন অগ্রগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। সেদিক থেকে সেমিনারটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও প্রাসঙ্গিক।

।। সোহেল হাজং

সোহেল হাজং : হাজং সম্প্রদায়ের লেখক, কলামিস্ট এবং সংগঠক।

আরো খবর…

আসছে নারী ফুটবলার মারিয়া মান্দার আত্মজীবনী মূলক গ্রন্থ

‘গিত্তাল মি আচ্ছিয়া’ ডকুমেন্টারি ফিল্মের প্রথম প্রদর্শনী ৮ সেপ্টেম্বর লন্ডন

https://www.facebook.com/watch/?v=1211504035676807

আদিবাসী সাহিত্য নিয়ে বইমেলায় 'থকবিরিম'

একুশে বইমেলায় আদিবাসীদের সাহিত্য চর্চা নিয়ে হাজির হয়েছে #থকবিরিম প্রকাশনী। দেশসেরা প্রকাশনীগুলোর পাশাপাশি সমানতালে এগিয়ে এটি। এক নজরে দেখে নিন……….

Gepostet von independent24.tv am Freitag, 22. Februar 2019




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x