Thokbirim | logo

১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

অনেককেই দেখি গারো নাচের নামে বাংলা মুদ্রা, বাংলা স্টাইলে নাচে।। মিশ্রা চিসিম

প্রকাশিত : আগস্ট ২৭, ২০২০, ১০:৪১

অনেককেই দেখি গারো নাচের নামে বাংলা মুদ্রা, বাংলা স্টাইলে নাচে।। মিশ্রা চিসিম

মিশ্রা চিসিম নামের সাথে পরিচয় না থাকলেও তার নাচের সাথে সবার পরিচয় আছে। বেশ কয়েকবছর ধরে ঢাকা ওয়ানগালায় কিংবা আদিবাসীদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানগুলোতে মান্দি নাচের মধ্যদিয়ে নিজ সংস্কৃতিকে তুলে ধরার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। মিশ্রা চিসিমের শৈশব কেটেছে গ্রামে। গ্রামেই লেখাপড়া করেছেন।মুমিন্নুনিসা ডিগ্রি কলেজ থেকে ডিগ্রি আর মাস্টার্স করেছেন তেজগাঁও কলেজ থেকে। তিন বোন এক ভাই। সব ধরনের নাচ করতে ভালোবাসেন। থকবিরিমের সাথে একান্ত আলাপে জানিয়েছেন নাচ নিয়ে স্বপ্নের কথা, ভালোলাগার কথা, আগামী পরিকল্পনার কথা। পাঠকদের জন্য তা প্রকাশ করা হলো-বি.স।

থকবিরিম : করোনাকালে সময় কাটচ্ছে কীভাবে?

মিশ্রা চিসিম : থকবিরিমকে ধন্যবাদ আমাকে কথা বলার সুযোগ করে দেবার জন্য। কেউ কল্পনা করতে পারেনি এমন খারাপ সময় আসতে পারে।সব কিছু থমকে যেতে পারে। বর্তমানে অলস সময় পার করছি। সব সময় ব্যস্ত থাকতাম তাই আোর কাছে অস্বস্তি লাগছে। বাড়িতে এসেছি তাই কিছুটা সময় কাটছে। রান্না করছি আর ঘরের টুকিটাকি কাজ করছি। গান শুনছি আর সেলাই করছি, এভাবেই সময় কাটছে।

থকবিরিম : নাচের চর্চা কেমন চলে?

মিশ্রা চিসিম : নাচের চর্চা একটু কম হচ্ছে। কারণ চারিদিকে সবকিছু এখনও ঠিকমত শুরু হয়নি। কোনো অনুষ্ঠান হচ্ছে না তাই প্র্যাকটিসও হচ্চে না। তবে একদম হচ্ছে না তা বললে ভুল হবে, আমি নিজে সময় করে চর্চা করছি।

থকবিরিম : কার কাছে নাচ শিখেছেন?

মিশ্রা চিসিম : ছোটবেলা থেকেই মোটামুটি নাচ করতাম। নাচের প্রতি আমার ভীষণ আকর্ষণ ছিলো। একদিন রাংরা পাড়া ওয়ার্ল্ডভিশন অফিসে আমাদের ডাক পড়ে প্রাক বড়দিন করতে। তখন ম্যানেজার ছিলেন স্বর্গীয় শুভ্র আরেং। সম্পর্কে কাকা। কাকা বলেছিলেন তোমরা যদি প্রাক বড়দিনের অনুষ্ঠান সুন্দরভাবে করতে পারো তাহলে তোমদের জন্য নাচের টিচার রেখো নাচ শিখাবো। আমরা অনুষ্ঠান সুন্দর করেছিলাম তাই তিনি নাটচের টিচার রেখে ছিলেন। সেখান থেকেই নাচের যাত্রা শুরু। শিক্ষক ছিলেন কাদের সিদ্দিকী। তারপর ময়মনসিংহ পড়তে এসে ময়মনসিংহ শিল্পকলা একাডেমিতে শিখি, ঢাকায় তামান্না রহমান মনিপুরি নাচের টিচার তার কাছে কিছু শিখি এখন নজরুল ইন্সটিটিউটে মনিপুরি নাচ শিখছি, আরো শেখার ইচ্ছা আছে…

থকবিরিম : নাচের জগতে আসার জন্য প্রেরণা কার কাছ থেকে পাওয়া?

মিশ্রা চিসিম : পরিবারই আমার নাচের মূল প্রেরণা। পরিবারের সাপোর্ট ছিলো বলে। আমি নাচ শিখতে পেরেছি। বাবা মা দিদি সবাই পাশে ছিলো। ওদের জন্য আজ আমি এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি।

থকবিরিম : প্রথম নাচের অভিজ্ঞা বলুন…

মিশ্রা চিসিম : জীবনে প্রথম বড় অনুষ্ঠান রাংরাপাড়া হাইস্কুল মাঠে নাচ করেছিলাম ‘শীত মাঝে এলো বড় দিন…’ এই গানে। কী যে ভালো লেগেছিলো তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না!

থকবিরিম : আপনাদের মতো আর কে কে নাচ করছে? তাদের মান কেমন?

মিশ্রা চিসিম : আমি মেনুস অভ্র তিনজন মিলে অনেক অনুষ্ঠান করেছি। আগামীতেও করবো। আমাদের মতো অনেকজনই নাচ করছে। তাদের নাচের মান দর্শকরাই বলতে পারবে। তাদের নাচ কেমন হচ্ছে! নাচ মানে শুধু নাচ না একটি নাচ তখনই পূর্ণতা পায় যখন নাচের ড্রেস গহনা ম্যাকাপ সব কিছু সুন্দর দেখায়। ভালো নাচ করতে হলে আগে নাচ শিখতে হবে। অনেককেই দেখি গারো নাচের নামে বাংলা মুদ্রা, বাংলা স্টাইলে নাচে। সেখানে গারো নাচের সৌন্দয থাকে না। একটি নাচ কোরিওগ্রাফি করার আগে ভাল করে গানের অর্থ বুঝতে হবে। গানের কথার সাথে নাচের মিল থাকতে হবে। তাহলে নাচ ঠিক থাকবে।

থকবিরিম: আপনার নাচের মূল বৈশিষ্ট্য কি? নাচ নিয়ে কী লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন?

মিশ্রা চিসিম :  প্রত্যেকটা নাচের মূল বৈশিষ্ট্য থাকে। হাঁ নাচ নিয়ে তো লক্ষ্য আছে। না থাকলে এ পেশায় আসতাম না। আমাদের গারো নাচ অনেকটাই বিলুপ্তির পথে। আমরা পুরনো সেই নাচগুলো ধরে রাখতে চাই। সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

থকবিরিম : এবারের ওয়ানগালা নিয়ে কোনো ভাবনা?

মিশ্রা চিসিম :  ওয়ানগালা আমাদের প্রধান উৎসব। এবং একটি মিলনমেলাও। সবার সাথে সবার দেখা হয়, কথা হয়। ছোটবড় সবাই আনন্দ করি। জানি না এবার ওয়ানগালা হবে কিনা। করতে পারবো কিনা। যদি ওয়ানগালা নাও হয় তবু আমরা ওয়ানগালাকে উৎর্গ করে নাচ করবো সেটা ফেসবুক কিংবা ইউটিউবে দেখা যাবে।

থকবিরিম : নাচে ভালো করার কী কী গুণাবলি থাকা প্রয়োজন মনে করেন?

মিশ্রা চিসিম : সব গুণই থাকা দরকার একজন ভালো নৃত্যশিল্পী হওয়ার জন্য। কোনো একটা বাদ পড়লে ভালো নৃত্যশিল্পী হওয়া যায় না।!

থকবিরিম : নাচ নিয়ে আগামীর পরিকল্পনা কী?

মিশ্রা চিসিম : পরিকল্পনা উদ্দেশ্য স্বপ্ন ছাড়া মানুষ জীবনে কোনোকিছু করতে পারে না। তাই মানুষের স্বপ্ন থাকতে হয়। ভিন্ন সংস্কৃতির আগ্রাসনে আমাদের সংস্কৃতি প্রায় বিলুপ্তির পথে। তাই যাতে বিলুপ্তি না হয়ে যায় আমরা সেই চেষ্টা করে যেতে চাই। যেন আগামী প্রজন্ম আমাদেরকে দেখে শিখতে পারে, নিজস্ব কালচার সম্পর্কে জানতে পারে।

ইউটিউবটাই আমার ভালোবাসা ।। নীল নন্দিতা রিছিল




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost