Thokbirim | logo

১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কামারখালি গ্রামবাসীদের আহাজারি থামছেই না।। জর্জ রুরাম

প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০২০, ২১:০৫

কামারখালি গ্রামবাসীদের আহাজারি থামছেই না।। জর্জ রুরাম

১নং কুল্লাগড়া ইউনিয়নে অন্তর্গত দুর্গাপুর উপজেলার গারো অধ্যুষিত গ্রামের নাম কামারখালি গ্রাম।  প্রায় এক দশক ধরে নদীতে বালু, পাথর উত্তোলনের নামে নদীতে ড্রেজার ব্যবহৃত হচ্ছে। মেশিন চলছিল দিনরাত বর্ষা মৌসুম ব্যতিরেকে। এখন সাময়িক বন্ধ। সেমেশ্বরীর বালু পাথর এখন একটি লাভজনক ব্যবসা।

এবারের বর্ষায় বহেরাতুলি, কামারখালি, বুলিপাড়া,  বড়ইকান্দি গ্রামগুলো ব্যাপক নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত। বেশি ক্ষতির সন্মুখীন কামারখালি গারো পরিবারগুলো।

পূর্বের কারিতাস কর্তৃক নদীরপাড় ঘেঁষে বেড়িবাঁধ ধ্বসে গেছে জায়গায় জায়গায়। কামারখালি  বাজারের উত্তরে দিলীপ সরকারের বাড়ির সামনে আর সড়ক নেই। সেবিকা রুগা, পরমা রুগা, বিল্লাল, সারথ রিছিল, বিকাশ রিছিলের পুরাতন ভিটা চলাচলের  রাস্তা  রাস্তা নেই, ধ্বসে গেছে পুরো রাস্তা।

গারো গ্রাম কামার খালি নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে

গারো গ্রাম কামারখালি নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে

আজ দুর্গাপুর উপজেলার নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় সাংবাদিকরা নদী ভাঙন পরিদর্শন করেছন। কামারখালি যুবক-যুবতীদের দ্বারা পরিচালিত “যুবশক্তি” বিভিন্ন গ্রামের যুবকরা সাময়িকভাবে নদী ভাঙন রোধে প্রচেষ্টা চালিয়েছে। মিন্টু রিছিলের ভাষ্য মতে রাণীখং, বহেরাতুলি, বামনপাড়া, মাধবপুর, দানীপাড়া, কনিকা নন্দিরগোপ গ্রামের যুবকরা এ কাজে সাহায্য সহযোগিতা করেছে।

গারো গ্রাম কামার খালি নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে

নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে গ্রাম

সাময়িক ভাঙন রোধের প্রচেষ্টা বর্তমানে পাড় ভেঙে ক্রমাগত হুমকীর মুখে পড়েছে। “আমাদের এলাকায় কত গণ্যমান্য লোক রয়েছে, অথচ আমাদের বিপদে খোঁজ নিল না।” শিক্ষিকা  তুষি রেমা বলছিল। তবে তিনি বলেছেন, বর্তমান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সন্মানিত সদস্য মি. রেমন্ড আরেং বিগত দিনে নদী ভাঙন পরিদর্শন করে সারাদিন যুবকদের কর্মকাণ্ড দেখেছেন।

গারো গ্রাম কামার খালি নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে

গারো গ্রাম কামার খালি নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে

বাজারের অধিবাসী দিলীপ সরকার আক্ষেপ করে বলেছেন, “আমাদের দুঃখ, স্থানীয় প্রশাসন আমাদের দেখতে এলো না!”

উল্লখ্য তাঁর বাড়ির রাস্তা গত কয়েকদিনে ধ্বসে গেছে। এতে জনগণের দারুণ অসুবিধে হচ্ছে। এখনো নদীরপাড় ক্রমাগত ভাঙছে। গ্রামবাসীরা প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছে। সবারই একই প্রশ্ন, “আমরা কোথায় যাব।”

ছবি জর্জ রুরাম।

জর্জ রুরাম :  দুর্গাপর, নেত্রকোণা : কামারখালি

ফাদার হোমারিক মহান ও নিঃস্বার্থ সমাজ সেবক ।। জেমস জর্নেশ চিরান

সোমেশ্বরীর রাক্ষসী থাবায় হুমকীর মুখে কামারখালি ।।  জর্জ রুরাম

 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost