Thokbirim | logo

১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বাংলাদেশি গারো সম্প্রদায়ের লেখকগণ ,যাদের হাতে সমৃদ্ধ হচ্ছে গারো সাহিত্য

প্রকাশিত : আগস্ট ১৫, ২০২০, ১২:০৫

বাংলাদেশি গারো সম্প্রদায়ের লেখকগণ ,যাদের হাতে সমৃদ্ধ হচ্ছে গারো সাহিত্য

গারো জাতিসত্তার সমৃদ্ধ শিল্পসাহিত্য-সংস্কৃতি রয়েছে। রয়েছে নিজস্ব ভাষা। সেই ভাষা ও সাহিত্য যেমন সমৃদ্ধ হয়েছে অগ্রজ লেখক সাহিত্যিকদের দ্বারা তেমনি বর্তমান সময়েও সমৃদ্ধ হচ্ছে বর্তমান সচল  লেখকগণের লেখায়। লেখকগণ তাদের লেখায় গারো সাহিত্য- সংস্কৃতি-ভাষার কথা বলে যাচ্ছেন তাদের লেখনির মাধ্যমে। এতে নিজস্ব সম্প্রদায়ের কাছে যেমন তেমনি ভিন্ন ভাষাভাষি সম্প্রদায়ের কাছেও পৌছে যাচ্ছে, পরিচিতি পাচ্ছে। ভাবের আদান প্রদান হচ্ছে। সমৃদ্ধ হচ্ছে উভয় শিল্প-সাহিত্যেরই। নিম্নে বর্তমান সময়ে যারা গারো সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করে চলেছেন তাদের সংক্ষিপ্ত তালিকা তুলে ধরা হলো।

১. মণীন্দ্রনাথ মারাক -বিরিশিরি মিশন এবং ব্যাপ্টিস্ট মণ্ডলীর ইতিহাস. গারো সংস্কৃতি

২.সুভাষ জেংচাম- বাংলাদেশের গারো সম্প্রদায়, গারো আইন ইত্যাদি

৩. জর্জ রুরাম- অব্যক্ত বেদনা, নিঃসঙ্গ বলাকা।

৪. মতেন্দ্র মানখিন- জাত থাংনি জুমাং, ধূর্তছায়া নষ্টকাল ইত্যাদি।

৫. জমেস জর্নেশ চিরান- না দৈর্ঘ না প্রস্থ, দুঃসময়ের বসতভিটা ইত্যাদি।

৬.থিওফিল নকরেক- নকরেক আচিক তুমি ধন্য, আমি উদ্বাস্তু হতে চাই না ইত্যাদি।

৭. সঞ্জীব দ্রং- আদিবাসী মেয়ে, দেমহীন মানুষের কথা ইত্যাদি।

৮.. বচন নকরেক- ইচ্ছেবন ইচ্ছে পাহাড়, ইচ্ছে পাহাড়ের মেয়ে ইত্যাদি।

৯.পরাগ রিছিল- খাবি, ফুলগুলি ফুলকপির ইত্যাদি।

১০.মিঠুন রাকসাম- দলিলে ভাটপাড়া গ্রাম, মান্দি জাতির পাণীয় ও খাদ্য বৈচিত্র্য।

১২. হেমার্সন হাদিমা-রায়তের দিনগুলি, চেঙো মিজাও।

১৩ সুমনা চিসিম- গারো জাতির ব্যবহৃত বনজ ঔষধি, ছোটদের গারো লোককাহিনি

১৪. বাবুল ডি. নকরেক- ধর্ষিতা শালবন ইত্যাদি

১৫ দেবাশীষ ইম্মানূয়েল রেমা- গারো লোককাহিনি

১৬. ফিডেল ডি. সাংমা- বনশালিকের অশ্র বিন্দু

১৭. সরোজ ম্রং- সোনারাম

১৮কমল কর্নেল চিসিম-স্বপ্ন ছোয়া ভালোবাসা, স্বপ্নের মায়াজালে ইত্যাদি।

১৯. ধীরেশ চিরান- বৃহত্তর ময়মনসিংহের বিপন্নপ্রায় পাহাড়ি নদনদীর কথা।

২০. তারা সাংমা- আঁধারে জোনাকি

২১. দিশন অন্তু রিছিল-গারো জাতির ভাষা, সংস্কৃতি ও রাজনৈতিক সংকট

২২. শরৎ ম্রং- ইচ্ছেগুলো স্বপ্ন হয়ে

২৩. অপূর্ব ম্রং- মৃন্ময়ী মন মোর

২৪ সুবর্না পলি দ্রং- বুনোফুল

২৫. লোটাস লূক চিসিম-ইদানিং বাউন্ডুলে স্বপ্নরা

২৬. দিগন্ত দানিয়েল ঘাগ্রা- বিপন্ন সময়গুলো

২৭. ব্রিজেট বেবি চিসিম-মেঘমায়ার কাব্য

২৮. তর্পন ঘাগ্রা- গিৎচাম কাত্থা

২৯. ফাদার গৌরব জি. পাথাং- ভালোবাসা ভালো থেকো

৩০. ফাদার বাইওলেন চাম্বুগং- যখন যেমন আলেঅ, ধ্যান ও জ্ঞান সাধনায় প্রতিদিন

৩১. লেবিসন স্কু- মানুষ এক অদ্ভুত সাঁড়াশি অনুবাদক

৩২. প্রাঞ্জল এম. সংমা- অরণ্য কুটির

যারা লিখে চলেছেন কিন্তু কোনো গ্রন্থ প্রকাশ হয়নি তাদের নাম-

৩৩. সৃজন রাংসা

৩৪. মৃগেন হাগিদক

৩৫. লিপা চিসিম

৩৬. ফৈবী ছিরিং মারাক

৩৭ নিগূঢ় ম্রং

৩৮. শাওন রিছিল

৩৯.  প্রণব নকরেক

৪০. কেনুস সম্রাট ম্রং

৪১. মনির চিছাম

৪২. সমর  চিরান(সাংমা)

৪৩. সম্রাট ডি. সাংমা

এই তালিকা এখানেই শেষ না। এটি অসম্পূর্ণ। তালিকার বাইরেও আরো অনেক লেখকগণ লিখে চলেছেন গারো সমাজের শিল্প সাহিত্যকে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের সম্পর্কে তথ্য কিংবা তালিকা হাতে পেলে যুক্ত করা হবে।

সূত্র : থকবিরিম সাহিত্যপত্র, বিশেষ কবিতা সংখ্যা।

।। জাজ্রিং মারাক

আরো লেখা

বাংলাদেশি প্রখ্যাত গারো সম্প্রদায়ের লেখকগণ

গারো রাজা জাপফা জালিনফা ।। মতেন্দ্র মানখিন

 




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x