Thokbirim | logo

২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

পীরেনের খিম্মায় ১৬ বছর যাবৎ কুটুপ পরিয়ে আসছেন “লতিন সিমসাং”।। জাডিল মৃ

প্রকাশিত : জানুয়ারি ০৬, ২০২০, ১২:৩৭

পীরেনের খিম্মায় ১৬ বছর যাবৎ কুটুপ পরিয়ে আসছেন “লতিন সিমসাং”।। জাডিল মৃ

৩রা জানুয়ারি পীরেন স্নালের মৃত্যুবার্ষিকী। পীরেন স্নাল একটি চেতনার নাম। যে চেতনাকে ধারণ করে পৌঁছে গিয়েছিলাম তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীতে।পীরেন স্নাল যে জায়গাটাতে শহিদ হয়েছিলেন, সেইখানে তৈরি করা হয়েছে খিম্মা(স্মৃতিসৌধ)। পীরেন স্নালকে নিয়ে গানের দল “মাদল” পীরেন স্নাল নামেই একটি দুর্দান্ত গান সৃষ্টি করেছেন। প্রতিবছর মৃত্যুবার্ষিকীর দিনে, সেখানে(খিম্মায়) বিভিন্ন রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃত্ববৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।পীরেন স্নাল, উৎপল নকরেক ও অন্যান্য যারা আন্দোলনের সময় আহত হয়েছিলেন এবং আন্দোলনের সাথে যারা যুক্ত ছিলেন তাদের সবাইকে স্মরণ করা হয়।
প্রতি বছরের ন্যায় এই বারেও মূল প্রোগ্রামের শুরুতে পীরেন স্নালের খিম্মায় “কুটুপ” পরানো হয়। যিনি দীর্ঘদিন মানে ১৬ বছর ধরে কুটুপ পরিয়ে আসছেন। উনাকে নিয়েই আজকের এই লেখা। যিনি লোকচক্ষুর আড়ালে কাজ করে চলেছেন নিরন্তর।

২০০৫ সাল থেকে প্রতিবছর, যিনি ১৬ বছর ধরে পীরেন স্নালের খিম্মায় কুটুপ পরিয়ে আসছেন, আমাদের জন্য তো বটেই সমগ্র গারো জাতির গর্ব ও গুরুত্বপূর্ণ একজন মানুষ। গুরুত্বপূর্ণ ও সৌভাগ্য কেন? সেই প্রশ্নের জায়গাতে যাবো না তবে লেখায় কিছুটা উঠে আসবে। যার কথা এতদিন লোকচক্ষুর আড়ালে ছিল উনার নাম হচ্ছে, “লতিন সিমসাং”। উনার বয়স এখন প্রায় ৭৩ বছর। তবে এখনো তিনি শক্ত সামর্থ্য সিনা টান করে চলাফেরা করেন। তিনি ইকোপার্ক বিরোধী আন্দোলনের সাথে যুক্ত ছিলেন। এছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন, গ্রাম উন্নয়ন, জাতির প্রশ্নে আপোষহীনভাবে কাজ করে চলেছেন।
তাঁর রোগ আছে কী না প্রশ্নে বলেন,”ঈশ্বরের আর্শীবাদে ভালো আছেন, সুষ্ঠ আছেন।” তিনি বসবাস করেন মধুপুর থানার কাকড়াগুনি গ্রামে। তাঁর এক মেয়ে এবং নাতি তিন জন আছেন। তিনি বর্তমান কমিটির “জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের” উপদেষ্টা মণ্ডলীতে আছেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ কাকড়াগুনি গ্রামের “জয়েনশাহী আদিবাসি উন্নয়ন পরিষদের”আঞ্চলিক শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।
আমাদের অজানার বাইরে যতজন গারো জাতির জন্য নিরলসভাবে আপন প্রচেষ্টায় কাজ করে চলেছেন তাদের মধ্যে লতিন সিমসাং-ও একজন। নিজের স্বার্থবাদী চিন্তার বাইরে, নিজের সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও জাতির জন্য সমাজের জন্য যতটুকু কাজ করতে পারেন তাই করে চলেছেন তিনি। তিনি দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে নিজের টাকায় কেনা পীরেনের খিম্মায় কুটুপ পরিয়ে আসছেন।
লতিন সিমসাং একজন প্রচার বিমূখ মানুষ।কাজ করে চলেছেন নিভৃতে। তাঁর সাথে কথা বলে জানা গেলো-ঈশ্বর যদি বাঁচিয়ে রাখেন, শক্তি সামর্থ্য দেন তাহলে তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত পীরেনের খিম্মায় কুটুপ পরিয়ে যাবেন।
লতিন সিমসাংকে জানাই “লাল সালাম”।




সম্পাদক : মিঠুন রাকসাম

উপদেষ্টা : মতেন্দ্র মানখিন, থিওফিল নকরেক

যোগাযোগ:  ১৯ মণিপুরিপাড়া, সংসদ এভিনিউ ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫। 01787161281, 01575090829

thokbirim281@gmail.com

 

থকবিরিমে প্রকাশিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। Copyright 2020 © Thokbirim.com.

Design by Raytahost